ঢাকা,২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

জৈন্তিয়া কেন্দ্রীয় ছাত্রপরিষদের নবগঠিত কমিটি ও সাবেক নেতৃবৃন্দের বিরোদ্ধে বিষেধাগার এর প্রতিবাদ

received_332915684347592.jpeg

জৈন্তিয়া কেন্দ্রীয় ছাত্রপরিষদের নব গঠিত কমিটি নিয়ে দৈনিক জৈন্তাবার্তায় প্রকাশিত প্রতিবেদন এবং সোস্যাল মিডিয়ায় নেতৃবৃন্দকে কটাক্ষ করে মন্তব্য করায় প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটি।সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাহফুজুল কিবরিয়া মাহফুজ ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেনের যৌথ স্বাক্ষরে বিবৃতিতে বলা হয়।

১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত বৃহত্তর জৈন্তিয়ার ঐতিহ্যের ধারক অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন “জৈন্তিয়া কেন্দ্রীয় ছাত্রপরিষদ “এর নবগঠিত কমিটি নিয়ে ২৩ ডিসেম্বর ২০২০ ইং ” জৈন্তিয়াকেন্দ্রীয় ছাত্রপরিষদের কমিটি গঠন নিয়ে ধুম্রজাল শিরোনামে “দৈনিক জৈন্তাবার্তা ২৪.কম “-এ একটি সংবাদ প্রকাশ করা হয়।এতে ফেইইসবুক থেকে সংগ্রহ করা জনবিচ্ছিন্ন কিছু মানুষের অগোছালো মন্তব্যেকে একত্রিত করে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয় এবং জৈন্তিয়া কেন্দ্রীয় ছাত্র পরিষদের নব গঠিত কমিটি কে অবৈধ বলে উল্লেখ করা হয়।পত্রিকা কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সত্যতা যাচাইয়ের জন্য সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ করা হয় নি এবং তাদের মতামত জানতে চাওয়া হয় নি।তাছাড়া তথাকথিত একটি সংগঠন জৈন্তিয়া গণপরিষদের সভাপতি শ্রদ্ধাভাজনেষু লাল মোহন দেব গং সহ কিছু লোক অত্যন্ত নোংরা ভাষায় আমাদের নেতৃবৃন্দের নামে ফেইসবুকসহ সোস্যাল মিডিয়ায় মিথ্যা কুৎসা রটনা করছেন, ভাষাহীন নির্বাক জন্তুর চেয়েও নিন্ম মানের ভাষার ব্যবহারকরছেন যা অত্যন্ত ন্যাক্ষারজনক বলে তারা মনে করেন।তারা আরো বলেন বৃহত্তর জৈন্তিয়া তথা গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কানাইঘাট ,কোম্পানিগঞ্জ, এর ঐক্য সংহতি এবং ঐতিহ্যকে অটুট রাখতে ধর্ম,বর্ণ,দল মত নির্বিশেষে ছাত্র সমাজ আজ ঐক্যবদ্ধ। একটা কুচক্রী মহল উক্ত ঐক্যের বন্ধনকে বিভাজন সৃষ্টি করার প্রয়াশ এবং ব্যাক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করার লক্ষ্যে পাবলিক মিডিয়া সহ বিভিন্ন মাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে যাচ্ছেন বলে তারা অভিযোগ করেন। তারা বিবৃতির মাধ্যমে বৃহত্তর জৈন্তিয়াবাসীর পক্ষ থেকে জৈন্তিয়া কেন্দ্রীয় ছাত্রপরিষদ এর নেতৃবৃন্দ উক্ত সংবাদ এবং ব্যাক্তি গনের নোংরা বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তারা আরো বলেন প্রকৃত সত্য বিষয় হচ্ছেমরহুম এম তৈয়বুর রহমানএর নির্দেশে ২০১০ সালে একটি সম্মেলনের মাধ্যমে সাবেক আহবায়ক নাজমুল আলম রোমেন কেপ্রধান করে একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।নিয়ম অনুযায়ী ৯০ দিনের মধ্যে কাউন্সিল আহবান করে নতুন কমিটি গঠনের কথা থাকলেও ১৩ বছর অতিবাহিত হয়ে যায়, নতুন কোন কার্যকরি কমিটি ঘোষণা করা হয় নি।ঐ সময়ে সাংগঠনিক কোন তৎপরতা ও লক্ষ্য করা যায় নি।যার ফলে জৈন্তিয়ার দীর্ঘ দিনের ঐতিহ্যঘেরা সংগঠন মৃত প্রায় হয়ে যাচ্ছিল।ঐ মৃত সংগঠনকে পুণরায় উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠাকালীন যুগ্ন আহবায়ক এটিএম বদরুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো:জামাল উদ্দিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো:গিয়াস আহমদ সহ সাবেক ছাত্রনেতা,মঈনুল হোসেন,মনিরুজ্জামান মনির,অধ্যক্ষ কামরুল আহমদ শেরগুল বিগত ২০১৩ সাল থেকে প্রচেষ্টা করে আসছেন।এই দীর্ঘ সময়ের মধ্যে নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ১০-১২ টি বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও আহবায়ক কমিটির দায়ীত্ব হস্তান্তর ও নতুন কমিটি গঠনের ব্যাপারে কোন স্বীদ্ধান্ত হয়নি।অবশেষে আহবায়ক কমিটির বিভিন্ন সদস্যদেরকে অনেক বুঝিয়ে সুজিয়ে বিগত ৩০ অক্টোবর ২০২০ নাজমুল আলম রুমেন কর্তৃক জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সম্মেলনের আহবান করা হয়।আলোচনা সভা শেষ করে কমিটি গঠনের আগ মুহুর্তে জনাব নাজমুল আলম রোমেন উনার সংগঠন বাংলাদেশ শ্রমিক লীগ এর কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জরুরী প্রয়োজনে কমিটি গঠনে উপস্থিত থাকার অপরাগতা প্রকাশ করেন এবং জনাব রোমেন সহ আহবায়ক কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ১৭ পরগনার সমন্বয়ক আবুল মৌলা চৌধুরী, সংঠনের প্রতিষ্ঠাকালীন যুগ্ন আহবায়ক এটিএম বদরুল ইসলাম এবং সাবেক সভাপতি এডভোকেট মো:জামাল উদ্দিন এর কাছে যাবতীয় দায়ীত্ব হস্তান্তর করেন এবং কমিটি গঠনের ভার ন্যাস্থ করেন।

আলোচনা সভা শেষ করে কমিটি গঠনের আগ মুহুর্তে জনাব নাজমুল আলম রোমেন উনার সংগঠন বাংলাদেশ শ্রমিক লীগ এর কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জরুরী মনে করে কমিটি গঠনে উপস্থিত থাকার অপরাগতা প্রকাশ করেন এবং জনাব রোমেন সহ আহবায়ক কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ১৭ পরগনার সমন্বয়ক আবুল মৌলা চৌধুরী, সংঠনের প্রতিষ্ঠাকালীন যুগ্ন আহবায়ক এটিএম বদরুল ইসলাম এবং সাবেক সভাপতি এডভোকেট মো:জামাল উদ্দিন এর কাছেযাবতীয় দায়ীত্ব হস্তান্তর করেন।কাছে যাবতীয় দায়ীত্ব হস্তান্তর করেন এবং কমিটি গঠনের ভার ন্যাস্থ করেন।
জনাব আবুলমৌলা চৌধুরী সাবেক নেতৃবৃন্দকে নিয়ে নতুন কমিটি গঠন করার প্রয়াশ করলে, বিভিন্ন পদবী প্রত্যাশী প্রার্থীরা একমত না হওয়ায় কমিটি গঠন সাময়িক সময়ের জন্য স্থগিত করা হয় ।এমতাবস্থায়সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দ ১৭ পরগনার সালিশ সমন্বয়ক আবুল মৌলা চৌধুরীর সাথে আলাপ করলে উনি শারিরীক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দ- প্রতিষ্ঠাকালীন যুগ্ন আহবায়ক গোলাম কিবরিয়া হেলাল,এটিএম বদরুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি আব্দুর রব,ফজলে জালাল চৌধুরী, সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট মো:জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক জসীম উদ্দিন, গিয়াস আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদ,সভাপতি মঈনুল হোসেন এবং সাবেক আহবায়ক এস কামরুল হাসান আমিরুল সাবেক ছাত্রনেতা মনিরুজ্জামান মনির ,আহমদুল কিবরিয়া বকুল, সালা উদ্দিন বেলাল এর কাছে যাবতীয় দায়ীত্ব হস্তান্তর করেন এবং নবাগত কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন।সংগঠনকে ঠিকিয়ে রাখার স্বার্থে এবং আগামী দিন গুলোতে সংগঠনের লক্ষ্য উদেশ্য ও কর্মসুচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সাবেক নেতৃবৃন্দ নতুন কমিটি গঠনের জন্য একাধিকবার রুদ্ধদ্ধার বৈঠকে বসেন। গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কোম্পানিগঞ্জ, কানাইঘাট এই ৪ উপজেলার সাবেক ছাত্রপরিষদের নেতৃবৃন্দ পারস্পারিক আলোচনা ও ঐক্যমতের ভিত্তিতে সকল উপজেলার সমন্বয়ে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট অত্যন্ত ফলপ্রসু একটি কার্যকরি কমিট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

সম্পাদক ও প্রকাশক: এড: মোঃ আব্দুল্লাহ আল হেলাল 01726840304

নির্বাহী সম্পাদক: আব্দুল হামিদ
বার্তা সম্পাদক: মুতিউর রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: সাহেদ আহমদ
উপ-সম্পাদক: ইয়াছিন আলী
উপ-সম্পাদক: ওয়াহিদ মাহমুদ

লেভেল-২, সুরমা টাওয়ার, তালতলা, সিলেট-৩১০০।
০১৭২৬-৮৪০৩০৪
news.sylhetdiganta@gmail.com