ঢাকা,২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

“ধলাই সেতু-দয়ার বাজার-চরার বাজার সড়কটি যেন এক উর্বর কৃষিজমি” জনভোগান্তির শেষ নেই ?

inbound4571385801958505760.jpg

ইয়ামিন আরাফাত, কোম্পানীগন্জ প্রতিনিধিঃ
সিলেট জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ধলাই সেতু হতে দয়ার বাজার- চরার বাজার সড়কটি যেন এক উর্বর কৃষি জমিতে রুপান্তরিত হয়েছে। দীর্ঘ দেড় যুগের অবহেলা,অযত্ন আর সংস্কারহীনতার কারণে সড়কটি এখন জলাভূমি আর কৃষি জমির মতই। দেখলে মনে হবে সদ্য কোনো কৃষক ধান বীজ রোপনের জন্য মই দিয়ে গেছেন। অথচ এটি একটি আঞ্চলিক সড়ক।
২০০৬ সালে ধলাই সেতু নির্মাণের পর এই সড়কটির যাত্রাকাল শুরু হয়। তারপর দীর্ঘ দেড় যুগ চলে গেলেও রাস্তাটি পায়নি কোনো পুনঃসংস্কারের কাজ। ধীরে ধীরে সড়কটির অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যায়। বর্তমানে সড়কটির বিভিন্ন অংশ বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষাকালে এসব গর্তে পানি জমে ছোট ছোট পুকুরের আকার ধারণ করে। সারাটি সড়ক যেন উচু-নিচু-ঢালু পর্বতের সমষ্টি। বর্ষাকালের পানিমিশ্রিত কাদামাটি আর গ্রীষ্মকালের ধুলোবালি জনজীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে।
ধলাই নদীর পূর্বপাড়ের মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তা এটি। পূর্ব ইসলামপুর ও উত্তর রনিখাই ইউনিয়নের হাজার হাজার যাত্রী প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে শহর-নগরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করেন। একমাত্র ট্রাক-ট্রাক্টর ছাড়া সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মালবাহী পিকআপ,এম্বুলেন্স, মোটরসাইকেল চলাচল সম্পূর্ণ অনুপযোগী। মাঝে মধ্যে বড় বড় ট্রাক-ট্রাক্টর উল্টে গিয়ে সম্পূর্ণ রাস্তা বন্ধ করে দেয়। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েন ব্যবসায়ী ও সাধারণ যাত্রীরা। গুনতে দিগুণ বাড়া।
স্হানীয় অধিবাসীদের সাথে কথা বললে জানা যায়,তাদের ক্ষোভের শেষ নেই। দীর্ঘ এক যুগ ধরে এই রাস্তাটি সংস্কারের দাবি জানিয়ে আসছেন এলাকাবাসী। কিন্তু, তাতে কর্তৃপক্ষের কোনো টনক নড়ছে না। এ নিয়ে চরম হতাশার মধ্যে আছেন দুই ইউনিয়নের অর্ধলক্ষ মানুষ। একটাই প্রশ্ন, কবে হবে এই ভোগান্তির অবশান ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

সম্পাদক ও প্রকাশক: এড: মোঃ আব্দুল্লাহ আল হেলাল 01726840304

নির্বাহী সম্পাদক: আব্দুল হামিদ
বার্তা সম্পাদক: মুতিউর রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: সাহেদ আহমদ
উপ-সম্পাদক: ইয়াছিন আলী
উপ-সম্পাদক: ওয়াহিদ মাহমুদ

লেভেল-২, সুরমা টাওয়ার, তালতলা, সিলেট-৩১০০।
০১৭২৬-৮৪০৩০৪
news.sylhetdiganta@gmail.com