ঢাকা,২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

একজন আত্মমর্যাদাবান স্যারের গল্প : আবুল কালাম

j6.jpg

আবুল কালাম : এম এ জামান পুরো নাম মর্তুজা আনছারুজ্জামান আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ সিলেট- এর সহকারি অধ্যাপক। অত্র প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৩০ বৎসর শিক্ষকতার পর বিগত ৩০/৬/২০২১ খ্রিঃ তারিখে অবসরে চলে যান। একজন আত্মমর্যাদাবান স্যারের অবসরে হৃদয়স্পটে ভেসে উঠে একটি সৌম্য, স্নিগ্ধ, নীতিবান পবিত্র পুরুষের মুখ। একজন সহকর্মী হিসেবে ২৫ বৎসর তার সাহচর্য পেয়েছি একেবারে কাছে থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে তাকে। অন্যায় অসত্যের বিরুদ্ধে সত্য ও সুন্দরের পক্ষে তিনি ছিলেন সদা সোচ্চার। কর্মস্থল আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজকে আপন করে নিয়েছিলেন। শিক্ষার্থী, শিক্ষক-কর্মচারী সকলের সাথে তার সম্পর্ক ছিল অত্যন্ত নিবিড়। প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি ইট পাথরের সাথেও যেন ছিল তার সখ্যতা। একজন ভাল শিক্ষকের পাশাপাশি খেলা, সিরাত মাহফিল, পিকনিক এমনকি বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও তার ছিল দীপ্ত পদচারণা। তিনি একজন ভাল বক্তা ভাল সংগঠক। মূলতঃ ইসলামের ইতিহাসের শিক্ষক হলেও ইংরেজি বিষয়ের উপর ছিল তার অগাধ দক্ষতা ও পারদর্শিতা। ইংরেজি বিষয়ের যেকোন সমস্যা নিমিষেই তিনি সমাধান করতে পারতেন। সুখে, দুঃখে বিপদে-আপদে যে ক’জন শিক্ষক বটবৃক্ষের মত ছায়া দিয়েছেন বা দিচ্ছেন জামান স্যার তেমনই একজন।


প্রতিষ্ঠানের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম ” গভর্ণিং বডি”র সদস্য হিসেবেও তিনি দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছেন। ছিলেন শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদকও। বিদ্যালয়টি কলেজ পর্যায়ে উন্নীত হবার সময়ে কলেজ প্রতিষ্ঠায় কলেজের পক্ষে তিনি চ্যালেঞ্জিং ভূমিকা রেখেছেন একই সাথে ছিলেন কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য। জীবনের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে যিনি ছিলেন সরব, আজ এই করোনাকালীন সময়ে অনেকটা নীরবেই তিনি অবসরে চলে গেলেন। কবিগুরুর সেই অমোঘ বানীটি আবারো সত্য প্রমাণিত হলো ‘ যেতে নাহি দিব ‘ হায়, তবু যেতে দিতে হয়, তবু চলে যায়। তারপরও বলব তার এই চলে যাওয়া এ যেন হৃদয় ভাঙ্গার ব্যথা, অনেকটা স্বজন হারানোর মতই। তার সাথে জড়িয়ে আছে হাজারো স্মৃতি। তার কতক স্মৃতি আর ভালবাসা আমার/ আমাদের আত্মহৃদয়ের মেঠোপথে হেঁটে চলবে নিঃশব্দে। এ স্মৃতিগুলো স্বরণ করে কখনো বা হাঁসবো কখনো কাঁদবো। তিনি চোখের আড়াল হলেও মনের আড়াল হবেন না। তার কর্মের জন্যই বেঁচে থাকবেন চিরদিন।


হে মহানুভব, আমাদের চোখ আজ অশ্রু ছল ছল । স্নেহভাজন হিসেবে আমরা আপনার কাছাকাছি ছিলাম। বয়সজনিত চপলতায় হয়ত কখনো মনের অজান্তে আমরা আপনার বিরক্তির কারণ হয়েছি, আমাদের কথায় বা আচরণে হয়তো কষ্ট পেয়েছেন। আজ এ বিদায় লগ্নে আপনার মহানুভবতার কাছে আমাদের দাবি- আপনি আমাদের ক্ষমা করে দেবেন।
পরিশেষে আপনার অবসর জীবন হোক অনাবিল সুখ-শান্তিতে সমৃদ্ধ- পরম করুণাময়ের কাছে এই আমাদের প্রার্থনা।


আবুল কালাম, সিনিয়র শিক্ষক, আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top